BREAKING NEWS
আগামী ২৬শে ফেব্রুয়ারি রাজ্যের ৬টি বিধানসভা কেন্দ্রের ৬টি বুথে পুনরায় নির্বাচনের নির্দেশ দিল জাতীয় নির্বাচন কমিশন। এই ৬টি কেন্দ্র হল সোনামুড়া, ধনপুর, কদমতলা কুর্তি, তেলিয়ামুড়া, অম্পিনগর এবং সাব্রুম।


  • জয় সম্পর্কে সুনিশ্চিত সিপিআইএম
  • রাজনৈতিক সন্ত্রাস কবলিত এলাকা সফরে বিজেপির প্রদেশ সভাপতি
  • ক্যাডার সন্ত্রাসে প্রাণ গেল গৃহবধূর
  • মধ্যপ্রদেশের দুই বিধানসভা আসনে আজ ভোটগ্রহণ
  • অকালে চলে গেলেন সংবাদ পাঠক দেবদুলাল
  • চালু হল ওএনজিসি সোনামুড়ায় জিসিএস
  • ফুটপাত ব্যবসায়ীদের দখলে, পুরনিগম ঘুমে
  • গাড়ির ধাক্কায় এক বৃদ্ধের মৃত্যু
  • আবার মজলিশপুর বিধানসভা কেন্দ্রে উদ্ধার বিস্ফোরক
  • ১লা মার্চ ত্রিপুরা হাইকোর্টের নতুন প্রধান বিচারপতির শপথ
  • দুটি কেন্দ্রের ভোট গণনা স্থলে পরিবর্তন জানালো সিপিআইএম
  • থানার লাগোয়া স্থানে ছিনতাই বাজদের খপ্পরে মহিলা আইনজীবী
  • নির্বাচন কমিশনের কার্যকলাপকে ক্রিমিনাল ক্যালাসমাত বললো সিপিআইএম
  • হায়দরাবাদে রাসায়নিক ফ্যাক্টরিতে বিধ্বংসী আগুন, দগ্ধ ছ’জন কর্মী
  • ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে রেল যোগাযোগের কাজ চলছে জোর কদমে
  • চারটি ব্যাগ সহ এক গাঁজা পাচারকারী আটক
  • আবারো সর্বনাশী ব্লু-হুইল প্রাণ কেরে নিল এক যুবকের
  • নিখোঁজ সন্তানের খোজে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে পোস্টার লাগালো মাতা পিতা
  • ৩ মাস ধরে নিখোঁজ দম্পতি
  • মিথ্যা অভিযোগে মহিলাকে পেটাইয়ের দায়ে অভিযুক্তরা অধরা, বাড়ছে ক্ষোভ
  • জাতীয় সড়কে চলাচল বিঘ্নিত
  • ৬ ফেব্রুয়ারি ৬টি বিধানসভা কেন্দ্রে পুনরায় নির্বাচন
  • আগরতলা, ২৩শে ফেব্রুয়ারি (এ.এন.ই ): আগামী ২৬শে ফেব্রুয়ারি রাজ্যের ৬টি বিধানসভা কেন্দ্রের ৬টি বুথে পুনরায় নির্বাচনের নির্দেশ দিল জাতীয় নির্বাচন কমিশন। এই ৬টি কেন্দ্র হল সোনামুড়া, ধনপুর, কদমতলা কুর্তি, তেলিয়ামুড়া, অম্পিনগর এবং সাব্রুম। এই ৬টি বিধানসভা কেন্দ্রের ৬টি বুথে অসংগতি সংক্রান্ত রিপোর্ট পাওয়ার ভিত্তিতেই পুনরায় নির্বাচনের নির্দেশ দিল জাতীয় নির্বাচন কমিশন। এই মর্মে একটি নির্দেশিকা রাজ্যের মুখ্যনির্বাচনী আধিকারিককে পাঠিয়েছে জাতীয় মুখ্য নির্বাচন কমিশন। জাতীয় নির্বাচন কমিশন থেকে জানানো হয়েছে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি সকাল ৭টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এই ৬টি বিধানসভা কেন্দ্রের ৬টি বুথে ভোট গ্রহণ হবে।
  • নির্বাচনে সন্ত্রাস ঠেকাতে পুনরায় আসছে কেন্দ্রীয় বাহিনী
  • শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় এইমসে ভর্তি মন্ত্রী খগেন্দ্র জামাতিয়া

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ঘরেই বানিয়ে নিন লাইটিং লেন্টার্ন

ত্বকের উজ্বলতার জন্য ২০টি টিপস

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

জাতীয় খবর

00310
0057
0057
0057
0057
প্যারিসে বাঙালি বিজ্ঞানীর রহস্যমৃত্যু, ধন্দে পরিজনরা

উত্তরপাড়া, ১৪ ফেব্রুয়ারি (এ.এন.ই ): ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে রহস্যজনকভাবে মৃত্যু হল বাঙালি বিজ্ঞানী স্নিগ্ধদীপ দে-র। পরিজনদের সঙ্গে স্নিগ্ধদীপের শেষবারের জন্য কথা হয়েছিল গত শনিবার| আর মঙ্গলবার হুগলি জেলার উত্তরপাড়ায়, স্নিগ্ধদীপের বাড়িতে খবর এল মৃত্যু সংবাদ। স্নিগ্ধদীপের পরিবারকে জানানো হল তাঁদের বিজ্ঞানী ছেলে আর নেই| কীভাবে মৃত্যু হল স্নিগ্ধদীপের তা নিয়ে রীতিমতো ধোঁয়াশায় তরুণ বিজ্ঞানীর পরিজনরা। প্যারিসে বাঙালি বিজ্ঞানীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই বুধবার উত্তরপাড়ার ভদ্রকালী এলাকায় স্নিগ্ধদীপের বাড়িতে যান উত্তরপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যান। বিগত ৪ বছর প্যারিসে কর্মরত ছিলেন বাঙালি বিজ্ঞানী স্নিগ্ধদীপ দে। গত শনিবার পরিবারের সঙ্গে শেষবারের জন্য কথা হয় তাঁর। তখন স্নিগ্ধদীপ জানিয়েছিল, প্যারিসে প্রচণ্ড ঠাণ্ডা সত্ত্বেও, সে ভালোই আছে। এরপর রবিবার রহস্যজনকভাবে তাঁর মৃত্যু হয়| পরিবারের কাছে দুঃসংবাদ আসে মঙ্গলবার। পরিবারকে জানানো হয়, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে স্নিগ্ধদীপের। বন্ধ ঘরের দরজা ভেঙে বাঙালি বিজ্ঞানীর দেহ উদ্ধার করেছে প্যারিস পুলিশ। মৃত্যু সংবাদ পাওয়ার পরই প্যারিসে যেই বাড়িতে স্নিগ্ধদীপ থাকতেন, সেই বাড়ির মালিককে ফোন করেন স্নিগ্ধদীপের বাবা শিশির দে। কিন্তু, ভাষাগত সমস্যার কারণে স্পষ্টভাবে কিছুই বুঝতে পারছিলেন স্নিগ্ধদীপের বাবা। পরে আমেরিকায় থাকা দুই বন্ধুর মাধ্যমে কথা হয়। স্নিগ্ধদীপের বাবা জানিয়েছেন, রাতে দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়েছিল স্নিগ্ধদীপ। কিন্তু, সকালে দরজা না খোলায় পুলিশে খবর দেন বাড়ির মালিক| বন্ধ দরজা ভেঙে বাঙালি বিজ্ঞানীর দেহ উদ্ধার করেছে প্যারিস পুলিশ। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে স্নিগ্ধদীপের মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হলেও, স্নিগ্ধদীপের মৃত্যুর কারণ নিয়ে রীতিমতো ধোঁয়াশায় রয়েছেন তাঁর পরিজনরা। স্নাতকোত্তরে মৌলানা আজাদ কলেজের ছাত্র ছিল স্নিগ্ধদীপ দে। পরবর্তী সময়ে বেঙ্গালুরুর জওহরলাল নেহরু সেন্টার ফর অ্যাডভান্সড সায়েন্টিফিক রিসার্চে পিএইচডি করেন তিনি| এরপর পতুর্গাল হয়ে ফ্রান্স| বিগত ৪ বছর প্যারিসে কর্মরত ছিলেন বাঙালি বিজ্ঞানী স্নিগ্ধদীপ দে।


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.