• প্রতাপগড় বিধানসভা কেন্দ্রে ব্যাপক রাজনৈতিক সংঘর্ষ
  • এডিসি স্কুলগুলিতে মিড-ডে-মিল চালাতে নাভিশ্বাস শিক্ষকদের
  • দেহ ব্যবসা ও নেশার ঠেক থেকে এক পাণ্ডা সহ দুই খদ্দের ও দুই ছিনতাইবাজ গ্রেপ্তার
  • সরকারের বঞ্চনার শিকারে দ্বিধা বিভক্ত রেগা কর্মচারীরা
  • রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে কর্মী তালিকা বানাতে বেকাদায় এসপি'রা
  • সদরের পর ভোটার তালিকার জালিয়াতির অভিযোগ উঠল জিরানিয়ায়
  • ৭০ বছরের এক বৃদ্ধার লালসায় শিকার নাবালিকা
  • রেললাইনের পাশ থেকে অজ্ঞাত যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার
  • বিশালগড়ে এক ব্যবসায়ীকে লক্ষ্য করে গুলি, তদন্তে পুলিশ
  • বাইখোরা এলাকায় গণধর্ষণের শিকার নাবালিকা মামলা নিয়ে পুলিশের গড়িমসি
  • ডাল কেলেঙ্কারি টেন্ডার ছাড়াই ৫০ কোটি টাকার ক্রয় বাণিজ্য
  • মদ বিরোধী অভিযানে পুলিশ ও জনগণের মধ্যে খণ্ডযুদ্ধ, উত্তপ্ত ড্রপগেইট এলাকা
  • রাজ্যের সাংবাদিকদের নতুন এক্রিডিটেশন পলিসি গঠনের সুপারিশ
  • আইজিএম হাসপাতাল চত্বরে নেশা সামগ্রী সহ ধৃত এক যুবক
  • ডিসিএম'র বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি
  • বিতর্কিত নাগরাজ ফের ডিজি?
  • পানীয় জলের দাবিতে আমবাসা-গণ্ডাছড়া সড়ক অবরোধ
  • ভোটার তালিকায় ভুয়ো প্রমাণপত্র দিয়ে নাম তোলার চেষ্টা অভিযোগ মহকুমা প্রশাসনের
  • দীর্ঘ ১৭ বছর পর ঘরে ফিরল নিলুবধূ
  • ২৫শে নভেম্বরের মধ্যে চালু হওয়ার সম্ভাবনা রাধানগরের দ্বিতীয় সেতুটি, ভোটের আগে উদ্বোধন অনিশ্চিত উড়াল পুলের
  • আগরতলায় কৃষক জমায়েতের ডাক দিয়েছে বিজেপি
  • এটিটিএফ সুপ্রিমোর গ্রেপ্তার ঘিরে গভীর ষড়যন্ত্রের অভিযোগ বিজেপি'র
  • চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে যুক্ত থাকার অভিযোগে মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের গ্রেপ্তার চেয়ে সিবিআইএর কাছে বিজেপি'র চিঠি
  • এটিটিএফ সুপ্রিমোর গ্রেপ্তার ঘিরে গভীর ষড়যন্ত্রের অভিযোগ বিজেপি'র
  • চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে যুক্ত থাকার অভিযোগে মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের গ্রেপ্তার চেয়ে সিবিআইএর কাছে বিজেপি'র চিঠি

ইক্সক্লোসিভ ভিডিও

ঘরেই বানিয়ে নিন লাইটিং লেন্টার্ন

ত্বকের উজ্বলতার জন্য ২০টি টিপস

ডেনমার্কে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম লম্বা ডিম! দেখুন কীভাবে লম্বা ডিম পাড়ে মুরগী

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

বিজ্ঞাপণ ব্যানার

লাইফস্টাইল

শীতে ত্বক কে সুরক্ষিত রাখার বিভিন্ন উপায় জেনে নিন

২০ নভেম্বর (এ.এন.ই ): দিনের দৈর্ঘ্য ছোট হয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে দিন দিন কমে আসছে তাপমাত্রাও। বাতাস শুষ্ক হয়ে যাচ্ছে, সঙ্গে সঙ্গে কমে যাচ্ছে ত্বকের গ্লো। এটাই শীতের পূর্বাভাস। তাই এখন থেকেই ত্বকের যত্ন না নিলে ফাটা ত্বক নিয়ে আপনাকে শীত কাটাতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক শীতে ত্বকের সুরক্ষার করণীয় দিকগুলো। : ১. সাবান ত্যাগ করুন: সুগন্ধী সাবান আপনাকে একদিনের জন্য ফ্রেস রাখতে পারে। কিন্তু আপনার ত্বককে তা রুক্ষ করে দেয়। ত্বক রুক্ষ হতে শুরু করলে ডিহাইড্রেট ফ্রি সাবান ব্যবহার বন্ধ করুন। এই শুষ্ক সময় ব্যবহার করুন ক্রিমযুক্ত বডি-ওয়াশ। ২. লোশন ছেড়ে তুলে নিন ক্রিম: বাতাস শুষ্ক হয়ে যাওয়ায়, ত্বকের প্রচুর পরিমাণে আর্দ্রতা দরকার। ক্রিম একটা তৈলাক্ত আবরণ তৈরি করে। ফলে লোশন ছেড়ে ক্রিম ব্যবহারই বাঞ্ছনীয়। ৩. ঠোঁট বাঁচান: শীতে ফাটা ঠোঁট বড় একটা সমস্যা। শীতে ঠোঁট ফাটার হাত থেকে বাঁচাতে ব্যবহার করুন নন-পেট্রোলিয়াম জেল। ৪. এবার একটা হ্যান্ড ক্রিম কিনেই নিন: শীতে হাতের চামড়ার খুব ক্ষতি হয়। শরীরের যত্ন নিয়ে হাতের দিকে নজর দেন না অনেকেই। এবার এটা না করে হাতের দিকেও নজর দিন। হ্যান্ড ক্রিম হাতের ত্বককে নরম করে ও রুক্ষতার হাত থেকে বাঁচায়। ৫. প্রচুর পরিমাণে জল পান করুন: শুধু বাইরের দিক থেকে রুক্ষতা প্রতিরোধ করাই নয়। নিজেকে ভিতর থেকে সজীব ও সতেজ রাখার জন্য প্রচুর জল পান দরকার। এমনিতে বেশি জল খাওয়ার উপকারিতার কোন বিকল্প নেই? এই শীতে তা ত্বক তো বটেই, সারা শরীরে সুস্থতার জন্যই কাজ দেবে। ৬. সবজি ও ফল খান: প্রতিটি ঋতুতে শরীরে কী কী উপাদানের ঘাটতি পড়ে আর কী দরকার, সেই হিসেবেই আসে মৌসুমি ফল ও সবজি। শীতে সবজির সমাহার। সবজি ভাল লাগে না বলে নাক কুঁচকোবেন না। বরং এই সবজির ভিটামিনই আপনার স্বাস্থ্য ও ত্বককে সতেজ রাখবে। ফলও একান্ত প্রয়োজনীয়। জরুরি ভিটামিন ও খনিজ সরবরাহে এদের বিকল্প নেই।

20-11-2017 03:52:57 pm

ফেসবুকের সুবাধেই উপযুক্ত জীবনসঙ্গী বা সঙ্গিনীকে খুঁজে নেওয়া জেনে নিন

১৫ নভেম্বর (এ.এন.ই ): ফেসবুকের সুবাধেই উপযুক্ত জীবনসঙ্গী বা সঙ্গিনীকে খুঁজে নেওয়া এবং তার হৃদয় জয় করে নিতে পারেন। তবে কী ভাবে ফেসবুকে খুঁজে নেবেন মনের মানুষকে? এই বিষয়ে জেনে নিন ৮টি বিশেষ টিপস- ১. লেখার পরিবর্তে ছবির মাধ্যমে নিজেকে অভিব্যক্ত করার চেষ্টা করুন। স্টেটাসের তুলনায় ছবি সবসময় অধিক সংখ্যক মানুষের নজর কাড়ে। ফলে আপনার ভালবাসার মানুষের চোখে পড়াও সহজতর হয়। কাজেই কোন রেস্তোরাঁয় খেতে গেলে, সেই নিয়ে স্টেটাস দেওয়ার পরিবর্তে খাবার ভর্তি প্লেটের ছবি পোস্ট করুন, লোকের চোখে পড়বে বেশি। ২. আপনার কর্মস্থল, পেশা বা কোন পদে আপনি রয়েছেন, নিজের প্রোফাইলে তা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করুন। প্রেমের বাজারে ভাল চাকরির দাম অস্বীকার করার উপায় নেই। ৩. আপনি কি সুদর্শন, কিংবা মোহময়ী সুন্দরী? তা যদি না হন, তাহলে শুধু প্রোফাইল পিক-এর জোরে কারোর মন জয় করার সম্ভাবনা কম। কাজেই মন দিন স্টেটাসের উপর। আপনি যা ভালবাসেন, যে বিষয়ে আপনি আত্মবিশ্বাসী, স্টেটাস দিন সেই বিষয়ের উপরেই। কবিতা পড়তে যদি ভাল না বাসেন, তাহলে আলটপকা কবিতার লাইন কোট করে লোক ঠকিয়ে লাভ নেই। ৪. স্মার্টনেস অবশ্যই জরুরি, কিন্তু ওভারস্মার্ট হতে গেয়ে পুরো ব্যাপারটা গুলিয়ে ফেলবেন না। কোন মেয়ের সঙ্গে চ্যাট করার সময়ে ‘হাই হটি’ মার্কা কথা দিয়ে আলাপ জমাতে গেলে অধিকাংশ মেয়েই তাতে বিরক্ত বোধ করে। তার চেয়ে শুধু ‘হাই’ কথা শুরু করার পক্ষে যথেষ্ট। ৫. নিজের বাড়ির কাছাকাছি মেয়ে বা ছেলেদের সঙ্গে আলাপ জমানোর চেষ্টা করুন। তাতে সোশ্যাল মিডিয়ার গণ্ডির বাইরে গেয়ে বাস্তবে দেখাশোনার কাজটা সহজ হয়। মেয়েটিও সুরক্ষিত বোধ করে। ৬. ফোন নাম্বার জোগাড় করার ক্ষেত্রে ‘তুমি কি হোয়াটস অ্যাপে আছ?’ মার্কা প্রশ্ন পুরনো হয়ে গেছে। আপনি ওই ধরনের প্রশ্ন করে নিজেকে সস্তা করবেন না। তার চেয়ে সরাসরি বলুন, ‘তোমার সঙ্গে একটু কথা বলতে চাই। ফোন নাম্বারটা পেতে পারি?’ সে কী উত্তর দিচ্ছে, তার ভিত্তিতে আপনার প্রতি তার মনোভাবটা বুঝাও সহজ হবে। ৭. কাউকে আপনার ভাল লাগতেই পারে, কিন্তু তাই বলে তার বিরক্তির কারণ হয়ে উঠবেন না। আপনার তরফ থেকে দু’একটা ‘হাই’, ‘হ্যালো’-তে যদি সাড়া না পান, তাহলে বুঝতে হবে, আপনার আশা কম। সেক্ষেত্রে দিবারাত্র তাকে মেসেজ করে তার মনোভাব আপনি বদলাতে পারবেন না। ৮. কাউকে ভাল লাগলে আলাপ একটু এগুনোর পরেই আপনার মনোভাব তাকে বুঝতে দিন। আলাপের দু’দিনের মাথায় সরাসরি প্রোপোজ করাটা বাড়াবাড়ি, কিন্তু তাকে যে আপনার ভাল লেগেছে, সে সম্পর্কে হালকা আভাস অন্তত দিন। না হলে একবার যদি সে আপনাকে নিছক বন্ধু বলে ভাবতে শুরু করে, তাহলে ‘বন্ধু’ থেকে ‘প্রেমিক’ হয়ে ওঠাটা কিন্তু প্রায় অসাধ্যসাধনের সামিল হবে। কাজেই প্রথম থেকেই আভাস দিন যে, আপনার মনে তার আসন কোথায়।

15-11-2017 04:45:32 pm

মাথার কাছে মোবাইল ফোন রাখলে মস্তিষ্ক বা শরীরের পক্ষে বিপজ্জনক

১১ই সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): মাথার কাছে মোবাইল ফোনটা চালু রেখে কখনও ঘুমাতে যাবেন না। জরুরি এসএমএস, হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ, ফোন কল আসার যতই সম্ভাবনা থাকুক না কেন দিনে, রাতে যখনই ঘুমাতে যাবেন, মোবাইলটা হয় বিছানা থেকে বেশ কিছুটা দূরে রাখবেন বা সেটা বন্ধ করে রাখবেন। চালু মোবাইলের ওয়াইফাই বিকিরণ ভয়ঙ্কর ক্ষতি করে দেবে আমাদের। সম্প্রতি উত্তর জাটল্যান্ডের নবম শ্রেণির একদল ছাত্রছাত্রী বিভিন্ন রকমের শাকের বীজ নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা করে দেখেছে, চালু মোবাইলের ওয়াইফাই বিকিরণ প্রাণের পক্ষে চরম ক্ষতিকারক। তা মৃত্যুও ডেকে আনতে পারে। পরীক্ষার ফলাফলে যথেষ্টই উৎসাহিত ইংল্যান্ড, হল্যান্ড ও সুইডেনের গবেষকরা। এ ব্যাপারে আরও গবেষণা চালাতে চেয়েছেন স্টকহলমের ক্যারোলিনস্কা ইনস্টিটিউটের বিশিষ্ট গবেষক ওলে জোহানসন। তিনি বেলজিয়ান অধ্যাপক মারি-ক্লেয়ার কামার্তকে সঙ্গে নিয়ে পরীক্ষাটা আবার করতে চেয়েছেন। পরীক্ষাটা যারা চালিয়েছে সেই ছাত্রছাত্রীদের অন্যতম লি নিয়েলসন জানিয়েছেন, ৪০০ রকমের শাকের বীজের ওপর তারা পরীক্ষাটা চালিয়েছেন। দু’টি আলাদা ঘরে একই তাপমাত্রায় ৬টি ট্রেতে ওই শাকের বীজগুলিকে রাখা হয়েছিল। ১২ দিন ধরে ওই দু’টি ঘরে রাখা শাকের বীজগুলিকে সম পরিমাণ জল আর সূর্যালোক দেওয়া হয়েছিল তাদের বেড়ে ওঠার জন্য। তাদের মধ্যে শাকের বীজ রাখা রয়েছে এমন ৬টি ট্রে’কে রাখা হয়েছিল দু’টি ওয়াইফাই রাউটারের কাছাকাছি। সাধারণ মোবাইল ফোন থেকে যতটা বিকিরণ আসে, ওই ওয়াইফাই রাউটারগুলি থেকে বিকিরণ আসে ততটাই। ১২ দিন পর দেখা গেল, ওয়াইফাই রাউটারের কাছে রাখা শাকের বীজগুলি মোটেই বাড়েনি। তাদের বেশির ভাগই হয় শুকিয়ে গিয়েছে বা মরে গেছে। আর যে শাকের বীজ ভরা ট্রে’গুলির ধারে কাছে কোনও ওয়াইফাই রাউটার ছিল না, সেগুলি খুব সুন্দর ভাবে বেড়ে উঠেছে জল আর সূর্যালোক পেয়ে। নবম শ্রেণির যে ছাত্রছাত্রীরা পরীক্ষাটা চালিয়েছে, তাদের আর এক জন ম্যাথিল্ডে নিয়েলসন বলেছেন, ‘‘এটাই প্রমাণ করেছে, ওয়াইফাই বা মোবাইলের বিকিরণ প্রাণের পক্ষে কতটা বিপজ্জনক। তাই আমাদের পরামর্শ, ঘুমোতে যাওয়ার সময় হয় মোবাইল ফোনটা দূরে রাখুন বা বিছানায় রাখতে হলে সেটাকে বন্ধ করে রাখুন। না হলে তা মস্তিষ্ক বা শরীরের পক্ষে খুব বিপজ্জনক হতে পারে। ’’

11-11-2017 02:27:41 pm

ফোন বুক পকেট বা প্যান্টের পকেটে রাখলে ক্ষতির বিভিন্ন দিক জেনে নিন

৫ই সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): অফিস, দোকান বাজার যেখানেই যান না কেন, আপনার ফোনটি বুক পকেট বা প্যান্টের পকেটে থাকে, তাই তো? আর মহিলাদের ক্ষেত্রে পকেট দেওয়া জামা পড়ার তেমন প্রচলন নেই বলে, তারা অনেকেই অন্তর্বাসের ভিতরে মোবাইল রেখে দেন। এতে কি হচ্ছে বা হতে পারে, তা কি জানা আছে? আসলে মোবাইল কোম্পানিগুলি আপনাদের কখনোই তাদের ক্ষতিকারক দিকগুলি বোঝাতে আসবেন না। এমনকি, সামান্য জানিয়ে দেওয়ার দায়িত্বও তারা নেবেন না। কারণ, তারা তাদের কোম্পানির ব্যবসা দেখবেন, তার লাভ দেখবে। আপনার শরীর নিয়ে তাদের কোনো মাথা ব্যাথা থাকার কারণ নেই। মোবাইল ফোনের এরকম বহু ক্ষতিকারক দিক আছে। সেগুলি নিয়েই আজকের আলোচনা- ১. মোবাইল ফোন বন্ধ্যাত্বের সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। বহু সমীক্ষায় দেখা গেছে যে পুরুষদের জন্য মোবাইল মোটেও ভাল নয়। এর কারণ, মোবাইল পুরুষদের ক্ষেত্রে বীর্যের পরিমাণ কমিয়ে দিতে পারে। সমীক্ষায় দেখান হয়েছে যে, কথা বলার সময় ফোন যদি পুরুষাঙ্গের কাছাকাছি থাকে, তবে তা বীর্য উৎপাদনকারী কোষের মারাত্মকভাবে ক্ষতি করে। এতে পরিমাণ মতো বীর্য তৈরি হতে পারে না। এতে মূলত ক্ষতিগ্রস্ত বীর্যের কারণে সন্তান দুর্বল এবং শারীরিক বা মানসিক প্রতিবন্ধকতা নিয়ে জন্মাতে পারেন। যে সকল পুরুষ কানে ফোন ব্যবহার বা করে হেড সেট ব্যবহার করেন এবং ঘণ্টার পর ঘণ্টা মোবাইল ফোন পকেটে থাকে, তাদের ক্ষেত্রে ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা সবথেকে বেশি থাকে। ক্লেভল্যান্ড-এ অবস্থিত সেন্টার ফর রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিন-এ মোবাইল ফোনের ওপর একটি সমীক্ষা ছালান হয়। তাতে ৩২ জন পুরুষের ওপর এই সমীক্ষা হয়। তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে বীর্যের নমুনা নিয়ে , তা দিয়ে নানা ধরণের পরীক্ষা নিরিক্ষা চালানো হয়। এক সময় নমুনাগুলির কাছাকাছি ফোন রেখে দিয়ে তার প্রভাব পরীক্ষা করা হয় এবং দেখা যায় যে, বীর্যগুলি যথারীতি খতিগ্রস্থ হয়েছে। এরই সঙ্গে বীর্য কম তৈরি বা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কারণ হিসাবে দায়ি করা হয়েছে পরিবেশ দূষণ এবং মূত্রসংক্রান্ত প্রজননতন্ত্রের সংক্রমণকে। ২.মোবাইলের বিকিরণ এবং ক্যান্সার: মোবাইল ফোন থেকে কি সত্যিই ক্যান্সার হয়? এই প্রশ্নটি আমাদের মনে বারবার করে উঠে আসে। আসলে মোবাইল ফোনের থেকে সত্যি সত্যিই ক্যান্সারের সম্ভাবনা সম্পর্কিত। মোবাইল ফোন ব্যবহার করার কারণে নানা ধরণের ক্যান্সার শরীরে বাসা বাঁধতে পারে। এর বড় কারণ হল, মোবাইল ফোনের ক্ষতিকারক বিকিরণ। এই ক্ষতিকারক বিকিরণের কারণে নারী এবং পুরুষ দুইই দারুণভাবে শারীরিক সমস্যার মুখোমুখি হন। ফলে, আশঙ্কা বাড়ে স্তন ক্যান্সার সহ অন্যান্য ক্যান্সারের। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মোবাইল ফোনসহ বিভিন্ন ওয়্যারলেস ডিভাইসকে টু বি রিস্ক-এর আওতায় রেখেছে। এর কারণ এগুলি যোগাযোগের মাধ্যম হিসাবে মাইক্রোওয়েভ তরঙ্গকে ব্যবহার করে, যা মানুষের মধ্যে ক্যান্সারের প্রবণতা বৃদ্ধি করতে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা পালন করে। অনেকেই মনে করেন যে, মোবাইল ,ক্যান্সার হওয়ার অবশ্যম্ভাবী কারণ হিসাবে কাজ করে। এমনকি, এর ওপর বহু পরীক্ষা নিরিক্ষা করে বহু কিছু প্রমাণিতও হয়েছে। ৩.আপনি কি মোবাইল ফোন অন্তর্বাসের ভিতরে রাখেন? ক্যালিফোর্নিয়ার ব্রেস্টলিঙ্ক নামক একটি সংস্থায় গবেষণা করে দেখা গেছে যে, স্তন ক্যান্সারের সঙ্গে মোবাইল ফোনের সরাসরি যোগাযোগ রয়েছে। গবেষণা থেকে জানা গেছে যে, যে সমস্ত পরিবারে পূর্বে কোনও ক্যান্সারের ইতিহাস নেই বা আক্রান্তের কোনও তথ্য নেই, সেই পরিবারেও এখন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। মূলত, চল্লিশ বছরের মধ্যে যে সকল মহিলা রয়েছেন, তাদের ক্যান্সার হওয়ার প্রবণতা সবথেকে বেশি। গবেষণা থেকে প্রমাণিত, যে সকল নারী অন্তর্বাসের ভিতরে মোবাইল ফোন রাখেন, তাদের প্রত্যেকের বুকের কোনও না কোনও স্থানে টিউমার হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল এবং এদের সকলের স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে। ৪. তাহলে কিভাবে মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে হবে? মোবাইল ফোন যতটা সম্ভব কম ব্যবহার করুন। একান্তই ব্যবহার করতে হলে, তাকে এমনভাবে রাখুন যাতে শরীরের কাছাকাছি না থাকে। সবথেকে বড় কথা, মোবাইল ফোন পকেটে রাখবেন না, বেল্টের সঙ্গে আটকাবেন না বা অন্তর্বাসের ভিতর রাখবেন না। সেই সঙ্গে ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোন অফ করে রাখুন। ৫.কিভাবে আরও সাবধানতা নেওয়া যায়? মোটামুটি এই পাঁচটি জিনিস মাথায় রাখুন। মোবাইল ব্যবহারে তাতে খানিকটা হলেও বিপদকে এড়াতে পারবেন। কানে হেড সেট ব্যবহার করুন। এতে শরীর থেকে দূরে ফোন থাকতে পারবে। ফোনে কথা বলার সময় আমাদের শরীর এবং মস্তিষ্ক প্রচুর পরিমাণে বিকিরণের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়, যা আমাদের খুবই ক্ষতি করে। তাই কথা বলার সময় হেড ফোন ব্যবহার করুন এবং ফোন কে একটি নির্দিষ্ট দূরত্বে রাখুন। কথা কম বলুন, মেসেজ করুন- যতটা সম্ভব ফোনে কথা কম বলে মেসেজের মাধ্যমে জরুরি কথা বলুন। সিগনাল ভাল থাকলে কথা বলুন। ফোনে যদি নেটওয়ার্কের পরিমাণ কম দেখায়, তাহলে সেই সময় কোনোভাবেই ফোনে কথা বলবেন না। কারণ, ফোনের সিগন্যাল বার কম দেখানো মানেই ফোন নিজের থেকে সিগন্যাল খোঁজার চেষ্টা করছে। এই সময়ে বিকিরণের মাত্রা খুব বেশি থাকে। পকেটে বা বালিশের নিচে ফোন রাখবেন না- যদি ফোন নির্দিষ্ট কিছু সময়ে ব্যবহার না করতে চান, তাহলে ফোন থেকে দূরে থাকুন। এছাড়া, কোনও সময় ফোন বালিশের নীচে নিয়ে শোবেন না। কারণ, ফোন ব্যবহার না করলেও শুধু অন থাকলে, তখনও প্রচুর পরিমাণে বিকিরণ ছড়াতে পারে।

05-11-2017 01:40:37 pm

বেজে উঠল অ্যালার্ম অনেক ক্ষতি করে আপনার জেনে নিন

৫ই সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন রয়েছেন, ঠিক সেই সময়েই মাথার কাছে বেজে উঠল অ্যালার্ম। তড়িঘড়ি তৈরি হয়ে গেলেন অফিসের জন্য। দীর্ঘদিন ধরে যদি এটি রুটিন তাহলে অনেক ক্ষতি করে আপনার। দীর্ঘদিন ধরে গভীর ঘুমকে অ্যালার্ম দিয়ে ভাঙালে যেসব ক্ষতি হতে পারে; খুব বেশি পরিমাণে আপদকালীন অ্যাড্রিনালিন হরমোন ক্ষরণ হয়। অ্যাড্রিনালিন হরমোনের অধিক ক্ষরণে রক্তচাপ বৃদ্ধি পায়। হৃদযন্ত্রের উপর খুব বেশি চাপ পড়াটাও ক্ষতিকারক। হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা বাড়ে। অ্যালার্ম কলে ঘুম ভেঙে গেলেও বেশ কিছুক্ষণ ঘুমভাব থেকে যায়। কাজ করার এনার্জি থাকে না। ঠিকঠাক ঘুম না হলে মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা হ্রাস পায়। মাথায় যন্ত্রণা অনুভব করে থাকবেন। অবসাদ বাড়িয়ে তোলে। কোন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা ক্রমশ লোপ পায়।

05-11-2017 01:32:26 pm

আজকের পূর্ণাঙ্গ পঞ্জিকা

২ নভেম্বর (এ.এন.ই ): আজ: ১৫ কার্ত্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার, কলি: ৫১১৮, সৌর: ১৬ কার্ত্তিক, চান্দ্র: ১৩ কেশব মাস, ৫৩১ চৈতনাব্দ, ১৯৩৯ শকাব্দ /২০৭৪ বিক্রম সাম্বৎ, ইংরেজী: ২ নভেম্বর ২০১৭, বাংলাদেশ:১৮ কার্ত্তিক ১৪২৪, ভারতীয় সিভিল:১১ কার্ত্তিক ১৯৩৯, মৈতৈ: ১৩ হিয়াঙ্গৈ, আসাম: ১৫ কাতি, মুসলিম: ১১-সফর-১৪৩৯ হিজরী সূর্য উদয়: সকাল ০৫:৪৩:৫৫ এবং অস্ত: বিকাল ০৪:৫৫:৪৬। চন্দ্র উদয়: বিকাল ০৩:৫০:৩১(২) এবং অস্ত: শেষ রাত্রি ০৪:২৮:১১(২)। অমৃতযোগ: দিন ০৫:৪৩:৫৫ থেকে - ০৭:১৩:৩০ পর্যন্ত, তারপর ০১:১১:৪৯ থেকে - ০২:৪১:২৩ পর্যন্ত এবং রাতি ০৫:৪৬:৫৮ থেকে - ০৯:১১:৪৯ পর্যন্ত, তারপর ১১:৪৫:২৭ থেকে - ০৩:১০:১৭ পর্যন্ত, তারপর ০৪:০১:৩০ থেকে - ০৫:৪৩:৫৫ পর্যন্ত। কুলিকবেলা: দিন ০৯:২৭:৫২ থেকে - ১০:১২:৩৯ পর্যন্ত। কুলিকরাতি: ০৮:২০:৩৬ থেকে - ০৯:১১:৪৯ পর্যন্ত। কালবেলা: দিন ০২:০৭:৪৮ থেকে - ০৩:৩১:৪৭ পর্যন্ত। বারবেলা: দিন ০৩:৩১:৪৭ থেকে - ০৪:৫৫:৪৬ পর্যন্ত। কালরাতি: ১১:১৯:৫০ থেকে - ১২:৫৫:৫২ পর্যন্ত। গ্রহস্ফুট (সূর্য উদয় কালীন): রবি: ৬/১৫/৮/২৬ (১৫) ৩ পদ চন্দ্র: ১১/১৬/৪৮/২৭ (২৭) ১ পদ মঙ্গল: ৫/১১/২৮/৭ (১৩) ১ পদ বুধ: ৭/৩/৪০/৩৯ (১৭) ১ পদ বৃহস্পতি: ৬/১২/৭/৫৩ (১৫) ২ পদ শুক্র: ৫/২৯/৪৫/৩৩ (১৪) ২ পদ শনি: ৭/২৮/২১/১৮ (১৮) ৪ পদ রাহু: ৩/২৮/১১/৪২ (৯) ৪ পদ কেতু: ৯/২৮/১১/৪২ (২৩) ২ পদ শুক্ল পক্ষ |তিথি: ত্রয়োদশী ( জয়া) দুপুর ঘ ০২:০৫:৩১ দং ২০/৫৩/৬০ পর্যন্ত পরে চতুর্দশী নক্ষত্র: উত্তরভাদ্রপদ সকাল ঘ ০৫:২৮:৫৪ দং ৫৯/২২/২৭.৫ পর্যন্ত পরে রেবতী শেষ রাত্রি ঘ ০৫:০৮:৪৬ দং ৫৮/৩০/৪৫ পর্যন্ত পরে অশ্বিনী করণ: তৈতিল দুপুর ঘ ০২:০৫:৩১ দং ২০/৫৩/৬০ পর্যন্ত পরে গর শেষ রাত্রি ঘ ০১:৩৪:১২ দং ৪৯/৩৪/২০ পর্যন্ত পরে বণিজ যোগ: হর্ষণ দুপুর ঘ ০১:৩৪:৩৩ দং ১৯/৩৬/৩৫ পর্যন্ত পরে বজ্র

02-11-2017 03:49:49 pm

এবার কেসিংয়েও চার্জ হবে ফোন

১লা সেপ্টেম্বর (এ.এন.ই ): এবার কেসিংয়ে চার্জ হবে ফোন। এমন একটি কেসিং তৈরি করেছে জিরোলেমন নামের একটি সংস্থা। এই কেসিংটি কেবলমাত্র স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট এইটে ব্যবহার করা যাবে। এতে ৫৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি রয়েছে। এদিকে স্যামসাংয়ের ফ্লাগশিপ ফোন নোট এইটে মাত্র ৩৩০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি রয়েছে। জিরোলেমন দাবি করছে তাদের এই কেসিংটি নোট এইটের সঙ্গে যুক্ত করলে ৪৮ ঘণ্টা টক টাইম পাওয়া যাবে। ১৬ ঘণ্টা একটানা ভিডিও দেখা যাবে। ৭৪ ঘণ্টা গান শোনা যাবে। যদিও এই কেসিং নোট এইটে সংযুক্ত করলে ফোনটি গরম হবার আশঙ্কা থেকে যাবে। এই স্লিম পাওয়ার কেসটি নোট এইট ইউজারকে দীর্ঘক্ষণ ফোন সচল রাখতে সাহায্য করবে।

01-11-2017 03:56:27 pm

আজকের পূর্ণাঙ্গ পঞ্জিকা

১ নভেম্বর (এ.এন.ই ): আজ: ১৪ কার্ত্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বুধবার, কলি: ৫১১৮, সৌর: ১৫ কার্ত্তিক, চান্দ্র: ১২ কেশব মাস, ৫৩১ চৈতনাব্দ, ১৯৩৯ শকাব্দ /২০৭৪ বিক্রম সাম্বৎ, ইংরেজী: ১ নভেম্বর ২০১৭, বাংলাদেশ:১৭ কার্ত্তিক ১৪২৪, ভারতীয় সিভিল:১০ কার্ত্তিক ১৯৩৯, মৈতৈ: ১২ হিয়াঙ্গৈ, আসাম: ১৪ কাতি, মুসলিম: ১০-সফর-১৪৩৯ হিজরী হরি উত্থান, চতুরমাস্য ব্রত সমাপন, নিয়ম সেবা সমাপ্ত সূর্য উদয়: সকাল ০৫:৪৩:২৩ এবং অস্ত: বিকাল ০৪:৫৬:২০। চন্দ্র উদয়: বিকাল ০৩:০৮:৩৯(১) এবং অস্ত: শেষ রাত্রি ০৩:২৮:৩৪(১)। অমৃতযোগ: দিন ০৫:৪৩:২৩ থেকে - ০৬:২৮:১৪ পর্যন্ত, তারপর ০৭:১৩:০৬ থেকে - ০৭:৫৭:৫৮ পর্যন্ত, তারপর ১০:১২:৩৪ থেকে - ১২:২৭:০৯ পর্যন্ত এবং রাতি ০৫:৪৭:২৯ থেকে - ০৬:৩৮:৩৭ পর্যন্ত, তারপর ০৮:২০:৫৩ থেকে - ০৩:০৯:৫৮ পর্যন্ত। মহেন্দ্রযোগ: দিন ০৬:২৮:১৪ থেকে - ০৭:১৩:০৬ পর্যন্ত এবং রাতি ০১:১২:০১ থেকে - ০৩:২৬:৩৭ পর্যন্ত। কুলিকবেলা: দিন ১০:৫৭:২৬ থেকে - ১১:৪২:১৭ পর্যন্ত। কুলিকরাতি: ১০:০৩:০৯ থেকে - ১০:৫৪:১৭ পর্যন্ত। বারবেলা: দিন ১১:১৯:৫১ থেকে - ১২:৪৩:৫৯ পর্যন্ত। কালবেলা: দিন ০৮:৩১:৩৭ থেকে - ০৯:৫৫:৪৪ পর্যন্ত। কালরাতি: ০২:৩১:৩৭ থেকে - ০৪:০৭:৩০ পর্যন্ত। গ্রহস্ফুট (সূর্য উদয় কালীন): রবি: ৬/১৪/৮/১১ (১৫) ৩ পদ চন্দ্র: ১১/৩/৩২/১৪ (২৬) ১ পদ মঙ্গল: ৫/১০/৫০/৩৮ (১৩) ১ পদ বুধ: ৭/২/৭/৬ (১৬) ৪ পদ বৃহস্পতি: ৬/১১/৫৪/৩৮ (১৫) ২ পদ শুক্র: ৫/২৮/৩০/৪৭ (১৪) ২ পদ শনি: ৭/২৮/১৫/২৬ (১৮) ৪ পদ রাহু: ৩/২৮/১৪/৫৩ (৯) ৪ পদ কেতু: ৯/২৮/১৪/৫৩ (২৩) ২ পদ শুক্ল পক্ষ |তিথি: দ্বাদশী (ভদ্রা) দুপুর ঘ ০২:৪৭:২৭ দং ২২/৪০/১০ পর্যন্ত , দুৱাদশীর পারনা: সকাল ০৫:৪৩:২৩-সকাল ০৯:২৭:৪২ পেয়াপরে ত্রয়োদশী নক্ষত্র: পূর্বভাদ্রপদ সকাল ঘ ০৫:২১:১০ দং ৫৯/৪/২৭.৫ পর্যন্ত পরে উত্তরভাদ্রপদ শেষ রাত্রি ঘ ০৫:২৮:৪৪ দং ৫৯/২২/২.৫ পর্যন্ত পরে রেবতী করণ: বালব দুপুর ঘ ০২:৪৭:২৭ দং ২২/৪০/১০ পর্যন্ত পরে কৌলব শেষ রাত্রি ঘ ০২:২৯:৪৮ দং ৫১/৫৪/৪২.৫ পর্যন্ত পরে তৈতিল যোগ: ব্যাঘাত দুপুর ঘ ০৩:১৮:০২ দং ২৩/৫৬/৩৭.৫ পর্যন্ত পরে হর্ষণ

01-11-2017 03:43:34 pm

হোটেল, রেস্তোরাঁয় খেতে গেলে বাধ্যতামূলক নয় পরিষেবা কর, নির্দেশিকা কেন্দ্রের

নয়াদিল্লি, ২ জানুয়ারি (এ এন ই) : এবার থেকে হোটেল, রেস্তোরাঁয় খেতে গেলে বাধ্যতামূলক নয় পরিষেবা কর| সোমবার কেন্দ্রীয় সরকার নতুন নির্দেশ জারি করে এমটাই জানিয়ে দিল | কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী, যদি আপনি হোটেল বা রেস্তোরাঁর পরিষেবায় খুশি হন, তাহলেই একমাত্র দিতে পােরন সার্ভিস ট্যাক্স | এ ব্যাপারে পুরো স্বাধীনতাই উপভোক্তার | এতদিন হোটেল, রেস্তোরাঁয় খেতে বা থাকতে গেলে বিলের ওপর লাগত অতিরিক্ত পরিষেবা কর | যার পরিমাণ অনেক সময়ই মাত্রারিক্ত হতো | এমনকী, হোটেল বা রেস্তোরাঁর সার্ভিস ভালো না হলেও, আপনি বাধ্য হতেন সার্ভিস ট্যাক্স দেওয়ার জন্য | সেই নিয়মেই এবার বাধ সাধল কেন্দ্র সরকার | পরিষেবা করকে একেবারেই উপভোক্তার ইচ্ছের জায়গায় নিয়ে গেল কেন্দ্রের নতুন নির্দেশে|

20-03-2017 12:20:14 pm

সম্প্রতি এদেশে লঞ্চ হতে চলেছে ডমিনার ৪০০ বাইক

৬ই জানুয়ারী (এ.এন.ই ): বজাজ অটো সম্প্রতি এদেশে লঞ্চ করেছে নতুন ডমিনার ৪০০। ভারতীয় মুদ্রায় ১.৩৬ লক্ষ এবং এবিএস ভার্সনের দাম ১.৫০ লক্ষ টাকা। এই মুহূর্তে বজাজ অটো ব্র্যান্ডের সবচেয়ে শক্তিশালী বাইক হিসেবেই প্রচালর করা হচ্ছে এই প্রিমিয়াম বাইকটিকে। খুব স্বাভাবিকভাবেই নতুন এই বাইকটির সঙ্গে তুলনা টানা হচ্ছে রয়্যাল এনফিল্ড, কেটিএম ২০০/ ৩৯০ ডিউক, নতুন মাহিন্দ্রা মোজো এবং সদ্য নতুন রূপে আপডেট হওয়া হন্ডা সিবিআর২৫০আর। যাঁরা সাধ্যের মধ্যে একটা ভাল পারফরম্যান্স ট্যুরার চাইছেন, তাঁদের কাছে এই বাইকটির লঞ্চ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই বাইকটির অ্যাসেম্বলি লাইন ছিল শুধুমাত্র মহিলা ইঞ্জিনিয়রদের নিয়ে তৈরি। অর্থাৎ এই বাইকের ফাইনাল অ্যাসেম্বলিং করেছেন মহিলা ইঞ্জিনিয়ররা। কোম্পানির এই উদ্যোগ প্রশংসনীয় তো বটেই। অনেকে বলছেন অবশ্য যে, এটা পাবলিসিটি স্টান্ট। এতদিন বজাজ যতগুলি বাইক লঞ্চ করেছে, তার মধ্যে ডিজাইন ও লুকসের দিক থেকে সেরা বলা যায় ডমিনার ৪০০-কে। বজাজের এটি প্রথম মডেল যেখানে ফুল এলইডি হেডলাইটস রাখা হয়েছে। এমনকী, এই প্রথম বজাজ-এর কোনও বাইকে ডিজিটাল এলসিডি ইনস্ট্রুমেন্ট ক্লাস্টার ব্যবহার করা হল। জান গেছে এবছরের এপ্রিল মাস থেকে দেশে টু হুইলার সেফটি প্রোটোকলে বেশ কিছু বদল আসতে চলেছে। অনেক নতুন বিষয় সংযোজন করা হয়েছে। নতুন সেফটি প্রোটোকলটি অক্ষরে অক্ষরে মেনেই ডিজাইন করা হয়েছে ডমিনার ৪০০। অটোমেটিক হেডল্যাম্প, ডুয়াল চ্যানেল অ্যান্টি-লক ব্রেকিং সিস্টেম ছাড়াও এই বাইকে রয়েছে বিএস ফোর। এবার আসা যাক এই বাইকের পাওয়ার অ্যাসপেক্টের প্রসঙ্গে। কেটিএম ডিউক ৩৯০ ইঞ্জিন আর ডমিনার ৪০০ ইঞ্জিনের মধ্যে একটাই পার্থক্য এবং তা হল এফিসিয়েন্সির। কেটিএম ৩৯০ ইঞ্জিনের ব্রেক হর্সপাওয়ার ৪৩ কিন্তু ডমিনার ৪০০-র ব্রেক হর্সপাওয়ার ৩৫। তাই নতুন ডমিনারের লিনিয়র পাওয়ার ডেলিভারি অনেকটাই ভাল ডিউক ৩৯০-র তুলনায়। ডমিনারের ইঞ্জিনটি এমনভাবেই রিটিউন করা হয়েছে। ট্যুরিংয়ের জন্য তাই এই বাইকটি অত্যন্ত ভাল। তা বাদ দিয়ে ডমিনার ৪০০-এ রয়েছে টেলিস্কোপিক ফ্রন্ট ফর্ক এবং মোনোশক সাসপেনশন সেটআপ। এছাড়া বাইকটির সামনে ও পিছনে রয়েছে ডুয়াল চ্যানেল এবিএস-সহ উচ্চশক্তিসম্পন্ন ডিস্ক ব্রেক। এই স্পেকস পড়েই অভিজ্ঞ রাইডাররা আন্দাজ করতে পারেন ঠিক কেমন হবে ডমিনার ৪০০ রাইডিংয়ের অভিজ্ঞতা। অ্যাডভান্স বুকিং শুরু হয়েছিল গত মাস থেকেই আর এই মাস থেকে ডেলিভারিও শুরু হয়ে যাওয়ার কথা। অনলাইনেও বুক করা যাবে এই বাইক। কিছুদিনের মধ্যেই বজাজ-এর বড় ডিলার আউটলেটগুলিতে টেস্ট রাইডের সুবিধাও পাওয়া যাবে। ভারতীয় রাইডারদের একটা বিরাট অংশ এনফিল্ড-ভক্ত। নতুন ডমিনার যেভাবে তৈরি হয়েছে তাতে এনফিলন্ডকে টক্কর দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। কিন্তু নতুন প্রজন্মের এই স্পোর্টস ট্যুরার কি পারবে এনফিল্ডকে টপকে যেতে? সেটা অবশ্য সময়ই বলবে।

06-01-2017 12:40:35 pm

ত্বক ভালো রাখে গোলাপজল জেনেনিন তাঁর উপকারিতা

২৯শে নভেম্বর (এ.এন.ই ): ত্বক ভালো রাখতে কত কিছুই না করি আমরা। ত্বকে একটু ব্যতিক্রম কিছু চোখে পড়লেই কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়ে। তাই বলে রূপচর্চা ছাড়লে তো চলবে না। বাড়িতে গোলাপজল রয়েছে নিশ্চয়ই!‌ বুঝেশুনে ব্যবহার করলেই হাতেনাতে ফল পাবেন। জেনে নিন গোলাপজলের উপকারিতা- ১) ‌ত্বকের পি এইচ ব্যালেন্স করতে সাহায্য করে গোলাপজল। মুখ ধোয়ার পর তুলায় ভিজিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখুন। এটি টোনারের কাজ করে। ২) ত্বকের আর্দ্রতা ফিরিয়ে আনে গোলাপ জল। ১০–১৫টা তুলসী পাতা বেটে নিন। ২০০ মিলি গোলাপজল মিশিয়ে একটি বোতলে ভরে ফ্রিজে রেখে দিন। দিনে একবার মুখে লাগান। ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকবেই, ট্যানও দূর করে। ৩) গোলাপজলে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান রয়েছে। কেটে ছিঁড়ে গেলে লাগাতে পারেন। ৪) এতে অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট উপাদান রয়েছে। কোষ ভাল রাখে। ৫) শীতকালে ঠোঁট ফাটে?‌ একটি বিট নিয়ে ছোট ছোট টুকরো করুন। কিছুদিন রোদে শুকিয়ে নিন। ভাল করে গুঁড়া করে এক চামচ গোলাপজল মেশান। ঠোঁটে ১৫ মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন। ঠোঁট নরম হবে। লিপস্টিকেরও দরকার হবে না। ৬) রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ময়শ্চারাইজার লাগান!‌ তার সঙ্গে দু’‌ফোঁটা গোলাপজল মিশিয়ে নিন। ভাল ফল পাবেন।

29-11-2016 02:17:50 pm

ঠোঁটের কালচেভাব দূর করার কিছু উপায় জেনে নিন

২৫শে আগস্ট (এ.এন.ই) আমাদের মুখের সৌন্দর্য অনেকাংশে নির্ভর করে ঠোঁটের রঙের ওপর। কিন্তু ঠোঁটের কালচে রঙের কারণে অনেকেই অস্বস্তিতে ভোগেন। ঠোঁট নিয়ে এমন সমস্যায় পড়তে পারেন নারী বা পুরুষ যে কেউ-ই। তবে মন খারাপের কিছু নেই। ঠোঁটের কালো রং দূর করার জাদু রয়েছে আপনারই হাতে। চলুন জেনে নিই ঠোঁটের কালচেভাব দূর করার কিছু উপায়- ১) একটা লেবুর অর্ধেক কেটে তার উপর দুই ফোঁটা মধু দিয়ে বৃত্তাকারে ঠোঁটে ম্যাসাজ করতে হবে। এরপর বরফ জলে ঠোঁট ধুয়ে নিলে ভালো ফল পাবেন। ২) সকালে দাঁত ব্রাশ করার সময় সাবধানে ঠোঁটও ব্রাশ করতে পারেন। এতে ঠোঁটের মরা কোষ ঝরে যায়। ৩) লেবুর রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে ঠোঁটে লাগাতে পারেন। এতে ঠোঁটের কালোভাব দূর হবে। ৪) ধনেপাতার রস ঠোঁটের কালোভাব দূর করতে খুব বেশি কার্যকরী। তাই নিয়ম করে ঠোঁটে ধনেপাতার রস লাগাত পারেন। ৫) প্রতিদিন গ্লিসারিন, অলিভ অয়েল, মধু ও গোলাপজল একসঙ্গে মিশিয়ে লাগালে ঠোঁটের উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে। ৬) রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে নারিকেলের তেলের সঙ্গে বাদাম তেল মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান। সপ্তাহে দু’দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করুন। কালো দাগ দূর হবে। ৭) মুলতানি মাটি, কয়েক ফোঁটা মধু ও কাঁচা দুধ মিশিয়ে ঠোঁটে লাগালে ঠোঁটের কালচে ভাব দূর হবে। ৮) শসা ও পাতিলেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে দিনে ৩ থেকে ৪ বার ঠোঁটে লাগান। ঠোঁটের কোনা কালো হয়ে গেলে উপকার পাবেন। ৯) ঠোঁটে লিপিস্টিক বা অন্য কিছু ব্যবহারের আগে তার মান সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন। ১০) আপনার যদি ধূমপানের অভ্যাস থাকে, তবে তা ছাড়তে হবে সবচেয়ে আগে। যেকোনো ধরনের অ্যালকোহল এড়িয়ে চলুন এবং খুব বেশি চা বা কফি খাওয়ার অভ্যাসও আপনার ঠোঁটের রঙের শত্রুতে পরিণত হতে পারে। তাই সুন্দর ঠোঁট পেতে অভ্যাসকে শিথিল করা জরুরি।

25-08-2016 03:27:20 pm

ত্বকের যত্নে ফেসিয়ালের বিকল্প নেই জেনে নিন

২৪শে আগস্ট (এ.এন.ই) ত্বকের যত্নে ফেসিয়ালের বিকল্প নেই। সুস্থ ও সুন্দর ত্বকের জন্য প্রয়োজন নিয়মিত ফেসিয়াল করার। কিন্তু সঠিক উপায়ে ফেসিয়াল না করলে তা ত্বকের জন্য হতে পারে হুমকিস্বরূপ। ভুল নিয়মে ফেসিয়াল করলে মুখের চামড়া ঝুলে যাওয়া বা ত্বকে বলিরেখাও দেখা দিতে পারে। তাই ফেসিয়াল করার আগে এর সঠিক নিয়ম জেনে নেওয়া জরুরি। ক্লিঞ্জিং: প্রথমে ক্লিঞ্জিং দিয়ে মুখ ধোয়ার পূর্বে প্রথমে গরম ভাপ নিয়ে নিন। এটি আপনার মুখের লোমকুপগুলো খুলে দিতে সাহায্য করবে। ভাপ নেয়া হয়ে গেলে ক্লিঞ্জার দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন ভালো করে। দুধে তুলা ভিজিয়ে ত্বক পরিস্কার করে নিতে পারেন। ক্রিম ম্যাসাজ: ফেসিয়াল ক্রিম দিয়ে ১০ মিনিট ত্বকে হালকা হাতে ম্যাসাজ করে নিন। স্ক্র্যাবিং: এবার স্ক্র্যাব দিয়ে মুখ আলতো ভাবে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ঘষুন। তারপর উষ্ণ তোয়ালে দিয়ে মুখ মুছে ফেলুন। উজ্জ্বল ত্বকের জন্য চালের গুঁড়া, সুজি অথবা চিনি হতে পারে সবচেয়ে ভালো স্ক্র্যাব। টোনিং: শসার রস, এক কাপ ওটমিল ও এক টেবিল চামচ দই একসঙ্গে মিশিয়ে ঘন মিশ্রণ তৈরি করুন। এবার এই মিশ্রণটা পুরো মুখে মেখে তিরিশ মিনিট রেখে হালকা গরম জলে ধুয়ে নিন। একটা ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে অর্ধেক লেবুর রস মিশিয়ে এই মিশ্রণটা ২০ মিনিট মুখে রেখে ধুয়ে ফেলুন। একটি টমেটো ভালো করে চটকে নিন। সঙ্গে আধা চা চামচ মধু মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এই প্যাক নিয়মিত ব্যবহারে আমাদের ত্বকের দাগগুলো সব মিলিয়ে যাবে। সমপরিমাণ ভিনেগার ও গোলাপ জল মিশিয়ে তৈরি করতে পারেন টোনার। যা ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে খুবই উপযোগী। তুলা দিয়ে টোনার মুখে লাগান কিন্তু ভুলেও ঘষবেন না। চোখের কাছে লাগাবেন না। এই পর্যায়ে ফেসিয়াল যে কোনো একটি মাস্ক প্রস্তুত করুন। ফুটন্ত গরম জলে ১ চামচ গ্রিন টি কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। ১টি বাটিতে ২ চামচ মুলতানি মাটি নিন। তাতে ২-৩ চামচ গ্রিন টি ভেজানো জল মেশান। অ্যালোভেরার আবরণ সরিয়ে রস বের করে নিন। এবার মুলতানি মাটি ও গ্রিন টির মিশ্রণে মিলিয়ে নিন। প্যাকটি মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট রাখুন, তারপর পরিষ্কার জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। একটা শসা কুড়িয়ে, সেটা থেকে রসটা বের করে এক চামচ চিনি ভাল করে মিশিয়ে কিছুক্ষণ ফ্রিজে রেখে দিন। ত্বকে মেখে দশ মিনিট রেখে ধুয়ে নিন। শসার রস ত্বককে হাইড্রেট করে, ফলে ত্বক অনেক মসৃণ ও উজ্জ্বল হয়। দু’চামচ মসুর ডাল সারারাত ভিজিয়ে রেখে পরদিন সকালে মসুর ডাল বেটে তার মধ্যে অল্প দুধ ও আমণ্ড তেল মিশিয়ে একটা মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এই প্যাকটা মুখে মেখে দশ মিনিট অপেক্ষা করুন। এবার জল দিয়ে ঘষে ঘষে ধুয়ে নিন।

24-08-2016 04:36:26 pm

ফ্ল্যাট স্যান্ডেল বা জুতোতে রয়েছে কিছু স্বাস্থ্য ঝুঁকি জেনে নিন

২২শে আগস্ট (এ.এন.ই) হিল জুতো পরলে পায়ের হাড়ে ব্যথা, হাঁটুর জয়েন্ট ক্ষয়ে যাওয়া সহ আরও নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় বলে আমরা জানি। আর এ কারণে অনেকেই ফ্ল্যাট স্যান্ডেল বা জুতো পরেন। তবে একেবারে ফ্ল্যাট স্যান্ডেল বা জুতোরও রয়েছে কিছু স্বাস্থ্য ঝুঁকি যা হয়তো আপনি জানেন না। আজকে জেনে নিন সবসময় ফ্ল্যাট জুতো ও স্যান্ডেল পরার অজানা কিছু স্বাস্থ্য ঝুঁকি সম্পর্কে। ফ্ল্যাট জুতো পড়লে পা মাটি, জল বা রাস্তার খুব কাছাকাছি থাকে। এতে করে খুব সহজেই পায়ের নখ এবং আঙুল ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হতে পারে। খুব সহজেই পায়ে ব্যাকটেরিয়া প্রবেশ করে। সুতরাং একেবারে ফ্ল্যাট জুতো পড়ার ব্যাপারে দ্বিতীয়বার চিন্তা করুন। অন্তত বর্ষাকালের সময়টাতে। দীর্ঘদিন ধরে পাতলা সোলের জুতো পড়ার ফলে পায়ের পাতার স্থায়ী ক্ষতি হতে পারে। হ্যামার টো নামক সমস্যা অর্থাৎ পায়ের পাতা বাঁকা হয়ে যাওয়ার প্রবণতা ফ্ল্যাট জুতো পড়ার কারণেই মূলত হয়ে থাকে। ফ্ল্যাট জুতো পড়লে পায়ের পুরো পাতার উপরেই চাপ পড়ে। এতে চাপ কিছুটা কমলেও পায়ের পেছনের অংশের উপরেই চাপটা বেশি পড়ে থাকে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় হয় পেশী। পায়ের পাতা ছড়িয়ে যাওয়ার সমস্যাও দেখা দেয় ফ্ল্যাট জুতোর ব্যবহারে। আপনি যখন ফ্ল্যাট জুতো পড়েন তখন পা ফেলার সময় পুরো পায়ের পাতা সমান ভাবে পড়ে। এবং ব্যাল্যান্স ধরে রাখার জন্য পায়ের পাতা যতোটা সম্ভব ছড়িয়ে পড়ে। দীর্ঘদিন ফ্ল্যাটজুতো ব্যবহারের কারণে পায়ের আকৃতি নষ্ট হয়ে যায়। সারাদিন হাঁটাচলা করতে হলে অনেকেই ফ্ল্যাট জুতো বেছে নেন। কিন্তু আমরা যখন সারাদিন হেঁটে বা দাঁড়িয়ে কাজ করে থাকি তখন হাঁটাহাঁটি করার ফলে আমাদের পায়ের পাতা পা পায়ের তলার সাথে এই ফ্ল্যাট জুতোর ঘর্ষণ বেশি হয় এবং পায়ের পাতার তালুতে জ্বলুনি ও ফোসকার সৃষ্টি হয় যা খুবই যন্ত্রণাদায়ক। তাই একেবারে ফ্ল্যাট স্যান্ডেল বা জুতো না পড়ে সাধারণ দেড় থেকে দুই ইঞ্চির হিল জুতো পড়ুন। আর দীর্ঘক্ষণ ফ্ল্যাট না পড়ে জুতো ঘুরিয়ে ফিরিয়ে পড়ার অভ্যাস করুন। পায়ের যত্নে একটু সতর্ক হোন।

22-08-2016 04:24:13 pm

বাজারে এসেছে টুইনমোস ব্র্যান্ডের ট্যাবলেট পিসি

৯ই আগস্ট (এ.এন.ই) দেশের বাজারে এসেছে টুইনমোস ব্র্যান্ডের ওয়াই-ফাই সুবিধার একিউ ৭১ মডেলের নতুন ট্যাবলেট পিসি। ৭ ইঞ্চি আকৃতির এই ট্যাবলেটটিতে রয়েছে ১ জিবি ডিডিআর-থ্রি র‌্যাম, ৮ জিবি মেমোরি, ললিপপ ৫.১.১ অপারেটিং সিস্টেম, ২.০ মেগাপিক্সেল ব্যাক ক্যামেরা, ০.৩ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা এবং ২৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি। ৪ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের টুইনমোসের এই ট্যাবলেট পিসি বাজারে এনেছে দেশের অন্যতম শীর্ষ প্রযুক্তি পণ্যের প্রতিষ্ঠান স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি) লিমিটেড।

09-08-2016 03:18:46 pm

আসতে চলেছে বিশ্বের প্রথম ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর যুক্ত ল্যাপটপ

৯ই আগস্ট (এ.এন.ই) এবছরই বাজারে আসছে অ্যাপলের নতুন ল্যাপটপ ম্যাকবুক প্রো। এই ল্যাপটপ নিয়ে জল্পনা কল্পনার শেষ নেই। শোনা গেছে, এই ল্যাপটপ হবে সুরক্ষিত। ল্যাপটপের সুরক্ষার জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। এর আগে কোনো প্রতিষ্ঠানই তাদের ল্যাপটপেই ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর সংযোজন করতে পারেনি। অ্যাপল যদি তাদের ল্যাপটপে ফিঙ্গার প্রিন্ট সিকিউরিটি সিস্টেম সংযুক্ত করতে পারে তবে এটাই হবে বিশ্বের প্রথম ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর যুক্ত ল্যাপটপ। ৯টু ৫ম্যাকের তথ্য মতে, অ্যাপল তাদের নতুন ম্যাকবুক প্রো নোটবুকে টাচ আইডি বাটন সংযোজন করছে। এই বাটনের মাধ্যমে ল্যাপটপটিকে আনলক করা যাবে। এই টাচ আইডি সেন্সর থাকবে পাওয়ার বাটনের সঙ্গে। যদিও আইফোন, আইপ্যাডের টাচআইডি সেন্সর পাওয়ার বাটনের সঙ্গে সংযুক্ত নেই। অ্যাপলের ম্যাকবুকে প্রো অন্য সব ম্যাকবুকের চেয়ে পাতলা হবে। ওজনেও হবে হালকা। এতে থাকছে রিভার্সিবল ইউএসবি সি পোর্ট।

09-08-2016 03:03:59 pm

সেপ্টেম্বরে বাজারে আসছে অ্যাপলের আইফোন ৭

২৫শে জুলাই (এ.এন.ই) আগামী সেপ্টেম্বরে বাজারে আসছে অ্যাপলের নতুন প্রজন্মের আইফোন ৭। ফোনটি বাজারে আসার সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ করেছে ১৬ সেপ্টেম্বর। প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটগুলোর বরাত দিয়ে জানা যায়, ১৬ সেপ্টেম্বর অ্যাপল তাদেরে ইভেন্টে আইফোনের তিনটি মডেল অবমুক্ত করবে। এগুলো হলো আইফোন ৭, আইফোন ৭ প্লাস এবং আইফোন ৭ প্রো। প্রযুক্তির খবর রটানোকারী টিপস্টার ইভান ব্লাস টুইটারে এক বার্তায় জানিয়েছে, অ্যাপল তাদের পরবর্তী প্রজন্মের ফোন আইফোন ৭, ১৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার অবমুক্ত করতে যাচ্ছে। অ্যাপলের নতুন ফোনে ডুয়েল ক্যামেরা থাকবে। এছাড়াও নতুন ফোনের ডিজাইনেও কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে।

25-07-2016 05:09:56 pm


Copyright © 2017 আগরতলা নিউজ এক্সপ্রেস. All Rights Reserved.